মুসলিম বানী সংকলন-জাকির হোসেন


আসলে আমি ইসলাম সম্পর্কে কিছু জানিনা,আর জানবোই বা কি করে আমি তো স্কুল কলেজ এ লেখা-পড়া করেছি তবে কিছু সময় আলেম উলামাদের মজলিস এ বসার তাউফিক আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহ আমাকে দিয়েছেন।।না জানলেও আমার ইসলাম নিয়ে লেখালেখির আগ্রহ খুব প্রবল কিন্তু কি লিখব কিছু জানিনা যে,তাহলে কি আমার লিখার কাজ বন্ধ থাকবে?না এটা আমার পক্ষে সম্ভব না।যাই পারি কিছু একটা লেখি-হ্যা আমি লিখব নিজে থেকে কিছু না পারলেও হয়তো কিছু লিখা সম্ভব।তবে গবেষনাধর্মী কিছু লিখতে পারব না,কারন আমি আলেম নই হয়তোবা ভাল কিছু করতে গিয়ে ক্ষতিও করতে পারি।তবে আমার মত যারা আছেন তাদের জন্যও কিছু পথ খোলা আছে।জেমনঃকোন আলেমের সোহবতে থেকে যা শিখেছি তা একত্রিত করতে পারি হয়ত আরেক জনেরও কাজে লাগতে পারে,অথবা কারও জীবন সম্পর্কে লিখতে পারি যা থেকে মানুষ কিছু শিখতে পারে,কোন মনীষীর কথা গুলো একত্র করতে পারি ইত্যাদি।কারন এগুলোও তো লেখা।এমনি কিছু চিন্তা অ চেতনা নিয়ে লিক্তে শুরু করলাম।আল্লাহ আমাকে তাউফিক দাও।আমি তো উল্লেখই করলাম না কি লিখছি অবশ্য উপরে টাইটেল দেখেও বুঝা যাচ্ছে তারপরও বলছি আমি মুসলিম মনীষীদের বানী সংকলন করতে যাচ্ছি।এরা কেউ জীবিত আছেন আবার কেউ অনেক আগেই বিদায় নিয়েছেন দুনিয়া ছেড়ে।এইসব বাণী গুলো আমি ভিবিন্ন বই,আলেম উলামাদের কাছ থেকে সরাসরি শোনা,জীবনি বিষয়ক গ্রন্থ,ইন্টারনেট ইত্যাদি থেকে সংরহ করেছি।এখন তা আমি আপনাদের সামনে ধারাবাহিক পেশ করছি।-জাকির(20.12.12)এই সব লেখা গুলো একত্রে পেতে আমাদের ওয়েব ও ফেসবুক ফ্যান পেজ এ পাবেন।
১।কারো উপরে বেশি নির্ভরশীল হয়ে যেয়ো না। মনে রেখো,
অন্ধকারে তোমার নিজের ছায়াও তোমাকে ছেড়ে চলে যায়।”
– ইমাম ইবনে তাইমিয়্যা
২।“আল্লাহর রজ্জুকে দৃঢ়ভাবে আঁকড়ে ধরা আর নিজেদের মাঝে বিভক্ত না হয়ে যাওয়া ইসলামের সবচেয়ে বড় উসূল (বুনিয়াদ) এর একটি ।”
– ইমাম ইবনে তাইমিয়্যা
৩। “জ্ঞানার্জন ছাড়া দিক-নির্দেশনা অর্জন করা যায় না। আর ধৈর্য্যধারণ ছাড়া সঠিক পথের দিশা অর্জন করা যায়না।”
– ইমাম ইবনে তাইমিয়্যা
[মাজমু’আল ফাতাওয়া : ভলিউম ১০/৪০]
৪। “আমার শত্রুরা আমার কিইবা করতে পারবে? আমার জান্নাত তো আমার অন্তরে। আমি যেখানেই যাই সে আমার সাথে সাথেই থাকে, আমার থেকে কখনো বিচ্ছিন্ন হয়না সেটা। কারাগার আমার ইবাদতের জন্য নির্জন আশ্রয়স্থল, মৃত্যুদন্ড আমার জন্য শাহাদাতের সুযোগ, আর দেশ থেকে নির্বাসন হচ্ছে আমার জন্য এক আধ্যাত্মিক ভ্রমণ।”
– ইমাম ইবনে তাইমিয়্যা
[ইবনুল কাইয়িম, আল ওয়াবিল,পৃ ৬৯]
৫।“ঈমানদারদের জীবন ক্রমাগত বিভিন্ন কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি করানো হয় তাদের ঈমানকে বিশুদ্ধ এবং তাদের পাপকে মোচন করানোর জন্য। কারণ, ঈমানদারগণ তাদের জীবনের প্রতিটি কাজ করেন কেবলমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য; আর তাই জীবনে সহ্য করা এই দুঃখ-কষ্টগুলোর জন্য তাদের পুরষ্কার দেয়া আল্লাহর জন্য অপরিহার্য হয়ে যায়।”
– ইমাম ইবনে তাইমিয়্যা
[মাজমু’আল ফাতাওয়া : ভলিউম ১৮/ ২৯১-৩০৫]
৬।আধ্যাত্মিকতা অর্জনের ব্যাপারটাই হলো নিজের নফসের সাথে ক্রমাগত জিহাদ করা।”
– তারিক রামাদান
৭।আমি যতই জ্ঞান অর্জন করি, আমার বিশ্বাস ততই দৃঢ় হয়। আমি যতই শিখি, আমি ততই সুন্দর করে আল্লাহর ইবাদাত করতে পারি। কারণ, প্রকৃতপক্ষে সমস্ত জ্ঞানের মহাজ্ঞানী আল্লাহ। আমি জ্ঞানার্জনের মাধ্যমে যা করতে চাই তা হলো — তাঁর কাছে যাওয়া”
– তারিক রামাদান
৮।“আপনি আজকে যা করছেন তা হয়ত আমি পছন্দ করিনা, কিন্তু তাই বলে আমি আপনাকে ছোট করবো না। কারণ, আগামীকালের আপনি আপনি হয়ত আজকের আমার চাইতে ভালো হবেন”।
– তারিক রামাদান
৯।একটা কথা প্রচলিত আছে, যা রটে তার কিছু তো বটে। এটি একটি বাস্তব সত্য। কিন্তু একজনের খুঁজে দেখা উচিত যে রটনার ঘটনাটাতে কী ঘটেছে এবং কে সেটা ঘটিয়েছে।”
– তারিক রামাদান
১০।“ইসলামে কোন সংস্কারের প্রয়োজন নেই। সংস্কার প্রয়োজন আমাদের মুসলিমদের মানসিকতায়”।
– তারিক রামাদান
……..ইনশাল্লাহ চলবে………

Posted on December 20, 2012, in IJBFBD POST. Bookmark the permalink. Leave a comment.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: